Header Ads

কিভাবে দ্রুত ইউটিউব ভিউস বাড়ানো যায়

কিভাবে দ্রুত ইউটিউব ভিউস বাড়ানো যায়? ইউটিউব এসইও, টিপস, ট্রিক, আইডিয়া, দরকারি, How to increase youtube views quickly Bangladesh dorkari info

আপনার লক্ষ্য যদি হয় ইউটিউব ভিডিওর জন্য অনেক ভিউস পাওয়া তাহলে আপনার সামনে রয়েছে কিছু কঠিন প্রতিযোগিতা। আমরা প্রায়ই আমাদের পাঠকদের বলি, অলাভজনক চ্যানেল গুলো তাদের দর্শকদের মনোযোগের জন্য ভাইরাল ভিডিওগুলির সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। এর কারন অলাভজনক ভিডিওগুলিও বিনোদনমূলক হওয়া দরকার - কেবল তথ্যপূর্ণ নয়।

আপনি যদি আপনার দর্শক শ্রোতাদের একটি মানসম্পন্ন ভিডিও দিয়ে ধরে রাখতে পারেন তবে তারা আপনার চ্যানেল টি সাবস্ক্রাইভ করবে এবং আপনার  প্রচারাভিযানের বিষয়ে আরো জানতে তারা আপনার চ্যানেল ও ওয়েবসাইট পরিদর্শন করবে এমন অনেক সম্ভাবনা রয়েছে।

কিন্তু আপনাকে প্রথমে মানসিকভাবে মানুষদের আপনার ভিডিও দেখতে আকর্ষণে আনতে হবে। তার জন্য - তাদেরকে হাসাতে, তাদের কাঁদাতে অথবা তাদের নতুন দরকারি তথ্য ইনফরমেশন দিয়ে এবং আকর্ষণীয় উপায়ে কিছু ভাবাতে হবে।

মানুষকে টেনে আনার বা আকর্ষণ করার প্রথম পদক্ষেপ কি? প্রথম পদক্ষেপ হচ্ছে দর্শকদের আপনার ভিডিও দেখাতে হবে!

বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম সার্চ ইঞ্জিন ইউটিউব (গুগল এর পরে) আপনার ভিডিও খুঁজে পাওয়ার একটি দুর্দান্ত পথ। আপনার ভিডিও আপলোড করার পরে দর্শক শ্রোতা যাতে আপনার ভিডিও দেখেন এবং যাদের অনুসন্ধানে আপনার ভিডিওটি আসে ও তারাও যেন ভিডিওটি দেখার আগ্রহ প্রকাশ করেন। তার জন্য আপনি কিছু উপায়ে আপনার ভিডিও দেখাতে এবং দেখার সম্ভাবনা বাড়িয়ে তুলতে পারেন। এ জন্য আপনাকে কিছু উপায় অবলম্বন হবে। ডিজিটাল বিজ্ঞাপন না দিয়ে, টাকা খরচ ছাড়া, ইউটিউব ভিডিওর বিউস দ্রুত বাড়ানোর কয়েকটি টি উপায় নিম্নে দেওয়া হল।

কিভাবে দ্রুত ইউটিউব ভিউস বাড়ানো যায়?

প্রথম পেজে ফিচার করুনঃ 

আপনি ইউটিউবে আপনার ভিডিও যুক্ত করার পরে, আপনার ভিডিওটি প্রথম পেজের ফিচার অংশে  ভিডিওটি যোগ করুন। কারন দর্শক / ব্যবহারকারী / ব্যাক্তিরা আপনার ইউটিউব চ্যানেলের প্রথম পেজে  থাকা সর্বশেষ ভিডিও টি প্রথমে দেখেন। ফিচার অপশনটি আপনার চ্যানেলের আপ টু ডেট ও বর্তমান এবং প্রাসঙ্গিক দেখায় এবং ইউটিউব ব্যবহারকারীর মনোযোগের আকর্ষণের কেন্দ্রে ভিডিওটি রাখে।

একটি ভাল থাম্বনেইল পছন্দ করুনঃ 

আপনি যদি ইউটিউবটিকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ইউটিউবকে আপনার থাম্বনেইল পছন্দ  করতে দেন তবে এটি সম্ভবত খুব আকর্ষণীয় হবে না। আপনার ভিডিওর একটি আকর্ষণীয় ইমেজ ক্যাপচার করার জন্য আপনার কম্পিউটারের স্ক্রিনশট বৈশিষ্ট্যটি ব্যবহার করুন অথবা ভিডিও টু ইমেজ কনভার্টার নামিয়ে কনভার্ট করে নিন এবং একটি আকর্ষণীয় ছবি পছন্দ করুন। সম্ভব হলে ফটোশপ দিয়ে ইডিট করে নিন তারপর আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিওর সেটিংসে গিয়ে আপলোড করুন।

ভিডিওর শিরোনাম বা টাইটেল সংক্ষেপে লিখুন এবং আকর্ষণীয় করুনঃ

আপনার ভিডিওর এমন একটি শিরোনাম টি দিন যা দেখে চোখ আটকে যায়। আবার এমন কোন টাইটেল দিবেন না যেটা আপনার ভিডিওর প্রসঙ্গে যায় না। আপনার ভিডিওর শিরোনাম দর্শক-কেন্দ্রিক তৈরি করুন এবং দর্শকগণ আপনার ভিডিওতে কেন ক্লিক করবে তা নিয়ে ভাবুন। যথোপযুক্ত শিরোনাম অনুপ্রেরণা একটি ভাল উৎস। এবং টাইটেল সংক্ষিপ্ত রাখার চেষ্টা করুন (কারণঃ লম্বা শিরোনাম দিলে ইউটিউব কেটে ছোট করে দেয়। যেমনঃ ভিডিওর শিরোনাম বা টাইটেল সংক্ষেপে লিখুন এবং আকর্ষণীয় করুন এটাকে কেটে ভিডিওর শিরোনাম বা টাইটেল সংক্ষেপে... দিয়ে দেওয়া হয়) ট্রাই করুন সংক্ষেপে শিরোনাম লেখার যাতে কাটা না হয় এবং ছোট আকারের শিরোনামে দর্শকদের ক্লিক করতে আরো ভাল হয়।

এসইও জন্য ভাল হবে যে ট্যাগ সেটা পছন্দ করুন।

আপনার ভিডিও উপাদান একটি সার্চ ইঞ্জিন হিসাবে ব্যবহার করছে - তাই আপনাকেও তার ন্যায় হতে হবে! আপনার সমর্থকরা আপনার ভিউয়াররা কী অনুসন্ধান করে / করছে সে সম্পর্কে চিন্তা করুন, এবং আপনার কীওয়ার্ডগুলিতে আপনার কীওয়ার্ডগুলি অন্তর্ভুক্ত রয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করুন। মনে রাখবেন, সব সবময় লোকেরা কী অনুসন্ধান করছে তা সর্বদা ভিডিওটির সঠিক কীওয়ার্ড নয়। আপনার ভিডিও টাইটেলের সাথে যায় এমন কীওয়ার্ডগুলি ব্যাবহার করুন।

ভাল একটি ভিডিওডেসক্রিপশন বা বিবরণ লিখুন।

আপনার ভিডিওতে কি কি আছে তা সংক্ষেপে লিখুন, ভিডিওতে কী ঘটবে কী হবে তা বর্ণনা করার পরিবর্তে মানুষকে একটি ছোট গল্প বলার মত বিষয়ে বিবেচনা করে লিখুন। লেখার শেষে আপনার চ্যানেলের লিঙ্ক দিন।

বিনামূল্যে ইউটিউব অ্যানোটেশন এর সুবিধা নিন।

এটা আসলে অ্যামেজিং অনেকে এটা সম্পর্কে জানেন না। আপনার ভিডিওতে অন্তত ১০ থেকে ৩০ সেকেন্ডের এক বা একাদিক এ্যানোটেশন এবং এন্ড্ স্ক্রিন থাকা উচিত এবং ভিডিওটির শেষ হওয়ার ঠিক আগে এবং ভিউয়ারদের নতুন ভিডিও দেখার পদক্ষেপ নিতে হবে এমন সময়ে একটি এনোটেশন লিঙ্ক সরবরাহ করা উচিত। এবং তারা সঠিক জায়গায় যাচ্ছেন কিনা তা নিশ্চিত করার জন্য লিঙ্ক টি চেক করে নিতে ভুলবেন না কিন্তু!

নিয়মিত এবং প্রায়ই সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করুন। 

সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম যেমন ফেসবুক, টুইটার ইত্যাদিতে নিয়মিত আপনার ইউটিউব ভিডিও শেয়ার করুন। প্রথম প্রথম নতুন পেজের সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলিতে পোস্ট করা প্রতিটি লিঙ্ক এ মানুষ নাও ক্লিক করতে পারে । তারপরেও আপনি নিশ্চিত করুন যে আপনি কমপক্ষে এক মাসের জন্য আপনার ভিডিওগুলি নিয়মিত পোস্ট করতে থাকুন এবং আপনার পোস্টগুলির শিরোনাম এবং চিত্রগুলি পরিবর্তন করে আপনার পোস্টগুলিকে তাজা রাখুন। দেখবেন যে এটা নতুন দর্শক শ্রোতা এক্সপোজার বৃদ্ধি করে নাটকীয়ভাবে আপনার দর্শকদের অন্তর্ভুক্ত করতে সাহায্য করবে এবং ভিডিওর ভিউস বাড়বে।
সম্পর্কিত অনুসন্ধান:
ইউটিউবে দ্রুত ভিউ বাড়ানোর কৌশল
ইউটিউব ভিউস বাড়ানোর সহজ উপায়
কিভাবে ইউটিউবে ভিউ বাড়বে
ইউটিউব অটো ভিউজ
ইউটিউব এসইও